রেড ড্রাগন

লেখক: মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন

ক্যাটাগরি: অনুবাদ

‘রেড ড্রাগন’ বইটির অনুবাদক আমাদের সবার পরিচিত মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন। নাজিম উদ্দিন আমাদেরকে পৃথিবী বিখ্যাত অনেক বই অনুবাদ করে দিয়েছেন মূল বইগুলোর আকর্ষণ নষ্ট না করে। নিজের ভাষায় বই পড়ার মত আনন্দ আর কোন ভাষায় পাওয়া যায় না। বিশ্ব কাপানো অনেক বই আমরা সহজেই হাতে পেয়ে যাই তার মত লেখকদের কারনে। যারা এই অনুবাদের কাজটি করে যাচ্ছেন তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। রেড ড্রাগন বইটি পড়ে সত্যি আমি স্তম্ভিত এবং ভয় পেয়েছি। রেড ড্রাগন লিখে থমাস হ্যারিস নিজের ক্ষমতা  প্রকাশ করেছেন পুরো বিশ্বের সামনে। সাইকোলজিকাল থ্রিলার লেখা সহজ কাজ নয়। থমাস হ্যারিসকে এই বিভাগের রাজা বললে ভুল বলা হবে না। এই অসাধারন সিরিজের স্রষ্ঠা থমাস। সিরিজের প্রথম বই রেড ড্রাগন। এক ভয়ঙ্কর সিরিয়াল কিলারের কাহিনী। চারটি বই আছে সিরিজে। আমি বইটি পড়ে সত্যি ভয় পেয়েছি কারন লেখক যেভাবে মানুষ মারার বর্ণনা দিয়েছেন, মানুষ কতটা নির্মম হতে পারে তারই এক কুৎসিত উদাহরণ রেড ড্রাগন। যাদের হার্ট দূর্বল তারা না পড়াই ভাল। কিছু দিনের ব্যবধানে দুটি পরিবারের সব সদস্যকে খুন করা হয়। খুনিকে সনাক্ত করার মত কোন মোটিভ বা চিহ্ন খুজে পাওয়া যায় না। এফবিআই কোন কিছুই বুঝতে পারছে না। তাই সাহায্য চাওয়া হল সিরিয়াল কিলার হন্টার এফবিআই থেকে অবসরে যাওয়া এজেন্ট উইল গ্রাহামের। সিরিয়াল কিলারদের সম্পর্কে আমার কোন ধারনা নেই।রেড ড্রাগন বইিটি পরে বুঝেছি একজন সিরিয়াল কিলারের চরিত্রক বৈশিষ্ট কেমন হতে পারে। শেষে এজেন্ট উইল গ্রাহাম নিজেই খুনির লক্ষে পরিণত হয়। গ্রাহামকে যদি বাচতে হয় তাহলে মারতে হবে খুনিকে।



রেড ড্রাগন
বইটির রিভিউ দিন

রিভিউ দিন